কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: কালিগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রেমে ফাঁদে ফেলে ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া এক যুবতীকে (১৯) উদ্ধার করেছে। গ্রেপ্তার হয়েছে মানব পাচার সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য দেবহাটার কুলিয়া মাঝেরপাড়া গ্রামের আবু সানার ছেলে আবুল কাশেম (৪০), কালিগঞ্জের ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে কথিত প্রেমিক মনিরুল ইসলাম ওরফে রনি (৩০) ও তার সহযোগী সাদপুর গ্রামের আকছেদ গাজীর ছেলে নুরুজ্জামান (৩২)।
থানা সূত্রে জানা গেছে, কালিগঞ্জ উপজেলার তারালী ইউনিয়নের গাইন পাড়া গ্রামের এক যুবতীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে মনিরুল ইসলাম ওরফে রনি (৩০)। ওই যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কাজীবাড়ি নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে দেবহাটার সীমান্তবর্তী পুটিমারি এলাকায় রবিউল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে যায় সে। বিষয়টি জানতে পেরে থানার উপ-পরিদর্শক তারিকুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার দিকে রবিউল ইসলামের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে যুবতীকে উদ্ধার করেন। ওই যুবতীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে কালিগঞ্জের নলতা ইউনিয়নের মাঘুরালি এলাকায় অভিযান চালিয়ে মানবপাচারকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য আবুল কাশেমকে আটক করেন। পরবর্তীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে প্রেমিক মনিরুল ইসলাম রনি ও নুরুজ্জামানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযান চালিয়ে পাচারকারী চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়ছে। ওই চক্রের অন্য সদস্যদের চিহিৃত ও আটকের চেষ্টা চলছে।

আপনার মতামত দিন