মনির খাঁন, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি: কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় মানসিক ভারসাম্যহীন নাছির মিয়া(৩৫) নামে এক ব্যাক্তির জবাই করা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অপর দিকে দুই জনের গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপযোর্পরি আঘাত করে জবাই করার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। আহতরা বর্তমানে ঢাকা ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে।
রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের বাখরনগর গ্রামে পৃথক তিনটি স্থানে হত্যা ও জবাই করার চেষ্টার ঘটনা ঘটায় দুর্বৃত্তরা।
নিহত মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) নাছির মিয়া(৩৫) পাশের দেবিদ্বার উপজেলার ভিংলাবাড়ী গ্রামের আঃ আওয়ালের ছেলে।
আহতরা হলো, মুরাদনগর উপজেলার নগরপাড় গ্রামের মৃত খোরশেদ ড্রাইভারের ছেলে তিশা পরিবহনের চালক জসিম উদ্দিন(৩২) ও গকুলনগর গ্রামের জয়দল হোসেনর ছেলে সেন্টু মিয়া(৩৬)।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে উপজেলার বাখরনগর গ্রামের কুমিল্লা-বি-বাড়িয়া সড়কের পাশে অনিক ব্রিকসের পাশে একটি সাটার বিহিন দোকান ঘরে মানসিক ভারসাম্যহীন নাছির মিয়ার কলা কাটা লাশ স্থানীয়রা দেখতে পায়। পরে মুরাদনগর থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (কুমেক) এর মর্গে প্রেরণ করে। অপর দিকে একই রাত সাড়ে ১১টায় সেন্টু মিয়া প্রতি দিনের মতো সিএনজি চালিত অটোরিক্সা নিয়ে নিজ বাড়ী ফিরছিলেন, সে সময় কুমিল্লা-বি-বাড়িয়া সড়কের বাখরনগর গ্রামের হক মিয়ার বাড়ির সামনে কাশেম স’মিলের কাছে আসার পর একজন লোক হাত বাড়ায়। চালক যাত্রী মনে করে গাড়ি থামানোর সাথে সাথেই গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে এবং হাত দিয়ে ছুড়ির আঘাত ঠেকানোর চেষ্টা করলে ততক্ষনে হাতসহ গলার ভীতর ধারালো ছুড়ি লেগে যায়। বর্তমানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে। অন্য দিকে জসিম উদ্দিন উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজার হতে নিজ বাড়ীতে যাওয়ার পথে কোম্পানীগঞ্জ-নবীনগর সড়কের কাশেম স’মিলের সামনে আসা মাত্র কে বা কারা পিছন থেকে জসিমের গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আগাত করে। এতে জসিমের গলা ও হাতের রগ কেটে যায়। বতমানে আহত জসিম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে।
এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, একজন পাগলকে হত্যা করার ঘটনায় অজ্ঞাত নামা আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে ও দুই জনকে ছুরি আঘাতের ঘটনায় এখনো কোন অভিযোগ হয়নি। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
আপনার মতামত দিন