কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে টর্নেডোয় লন্ডভন্ড হয়েছে প্রায় অর্ধশত কাঁচা ও পাকা বাড়ি। উপজেলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের হাড়দ্দহা গ্রামে মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে ঘটে যাওয়া এই দুর্যোগে ১৯ টি বসতবাড়ি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া ৩০ টির অধিক বসতবাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

সরেজমিন বুধবার হাড়দ্দহা গ্রামে গেলে আব্দুস সবুর, সজীব হোসেনসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে হঠাৎ ৩/৪ মিনিটের আচমকা একটি ঝড়ে লন্ডভন্ড যায় গ্রামের একাংশ।

তারা আরও জানান, রাত থেকে স্থানীয় উপজেলা পরিষদ, প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিরা অসহায় এই মানুষের পাশে এসে দাঁড়ায়নি। এলাকার যুব সংঘের উদ্যোগে দুপুরে অসহায়দের খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আকষ্মিক এই দুর্যোগে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।
এদিকে মঙ্গলবার বিকেল থেকে বুধবার (২৮ জুলাই) সন্ধ্যা পর্যন্ত কয়েক ঘণ্টার ভারী বর্ষণে উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে করে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে কয়েক হাজার পরিবার। ভেসে গেছে জমির ফসল, আমন বীজতলা, মাছের ঘের ও পুকুর। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও ঘরবাড়িতে পানি উঠেছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিরাজ হোসেন খান বলেন, আমি সকালে হাড়দ্দহা গ্রামে গিয়েছিলাম। আপাতত তাদেরকে কিছু শুকনা খাবার দেওয়া হয়েছে। ১৯ টি ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলামের কাছে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত দিন